৭৪ বছর বয়সে কুরআন মুখস্থ করলেন বৃদ্ধা

Bangla News

একজন অশীতিপর বয়োবৃদ্ধা। বয়সের ভারে ন্যুব্জ। তারচেয়ে বড় কথা তিনি লেখাপড়া কিছুই জানেন না। কিন্তু এতসব অপারগতা তার স্বপ্ন পূরণের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। তার স্বপ্ন ছিল তিনি আল্লাহর পবিত্র কোরআন হিফজ বা মুখস্থ করবেন। দীর্ঘ প্রচেষ্টায় সফল হয়েছেন। পুরো কোরআন তিনি হিফজ করতে পেরেছেন।

 

১৬ বছর আগে জর্দানের ইরবিদ প্রদেশের উমরওয়া কোরআন কেন্দ্রে প্রাতিষ্ঠানিক পাঠ্যক্রম অনুযায়ী তিনি শিখতে শুরু করেছিলেন। কোরআন পড়তে শেখার পর অল্প অল্প করে মুখস্থ করতে শুরু করেন। তার সামান্য সামান্য প্রচেষ্টা একসময় বিশাল ফলাফল বয়ে আনে। তিনি সমগ্র কোরআনুল কারিম মুখস্থ করে নেন।

 

আশ্চর্য ও অনুপ্রেরণা-জাগানিয়া এ বৃদ্ধার নাম নুরা আল-ওয়ারদাহ। তিনি জর্দানের অদিবাসী। নিরক্ষর হওয়া সত্ত্বেও ৭৪ বছর বয়সে পবিত্র কোরআন হেফজ করতে সক্ষম হয়েছেন এবং নিজেকে অন্যদের জন্য দৃষ্টান্ত হিসেবে তুলে ধরেছেন।

 

নুরার কোরআন হিফজের শিক্ষক নুমা ফুয়াজ বলেন, তিনি অশিক্ষিত হওয়া সত্ত্বেও কোরআন হিফজ করার প্রতি এতো বেশি আগ্রহ ও উদ্দীপনা দেখিয়েছিলেন যে আমি তাকে কোরআন মুখস্থ করার ক্ষেত্রে সাহায্য করার জন্য উৎসাহিত হয়েছিলাম।

 

নিয়মতান্ত্রিক অধ্যাবসায় ও প্রচেষ্টার মাধ্যমে নুরা আল-ওয়ারদাহ কোরআনের হেফজ সম্পন্ন করেছেন। ১৬ বছরের দীর্ঘ এ সময়ে তিনি নিজের লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হননি। ক্রমাগত অনুশীলন ও সাধনায় তিনি লক্ষ্য ও স্বপ্ন পূরণে সক্ষম হয়েছেন।

 

বস্তুত কোরআনের হিফজ বা মুখস্থ করার বিষয়টি আল্লাহ সহজ করেছেন। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তাআয়ালা ইরশাদ করেন, ‘(হে রসুল) আমি তোমার ভাষায় কোরআনকে সহজ করে দিয়েছি যাতে তারা উপদেশ গ্রহণ করে।’ (সূরা দুখান, আয়াত: ৫৮)

 

অন্য আয়াতে আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘আর অবশ্যই আমি কুরআনকে সহজ করে দিয়েছি উপদেশ গ্রহণের জন্য।’ (সুরা কামার, আয়াত: ১৭)

 

যারা কুরআন হিফজ করতে চায়, আল্লাহ তাদের তাওফিক দান করেন। তাদের জন্য হিফজ করা সহজ করে দেন। দুনিয়া ও আখেরাতে তাদের অনন্য মর্যাদায় ভূষিত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *